Breaking News

 লোকাল বাস

বাস পুরাই খালি অনেক গুলো সিট ফাঁকা পরে আছে। কিন্তু একটা বিষয় লক্ষনীয় ছিল যে সবাই ডাবল সিট গুলোতে একাই বসে আছে পাশে কেউ বসতে চাইলে বসতে দিচ্ছে না এভাবেই পুরো বাস ভরে গেছে। বাহিরে থেকে  দেখলে মনে হবে পুরো বাসের একটা সিট ও খালি নাই কানায় কানায় ভরা। আমিও ত এ দেশেরই জনগন স্বভাবগতভাবে একই হওয়ার কথা আর তাছাড়া এখন করোনায় যে অবস্থা চলছে বাসে উঠা উচিৎ নয় সেখানে কোনো ভাবে আজকে বাসায় পৌছাতে পারলেই বাঁচি। আমিও দুইটি সিট দখল করে একটি বানিয়ে বসে পরলাম আর বার বার হেক্সিসল বের করে হাত টা মলেস্ট করতেছি। মনে মনে দোয়া পড়তেছি এই বাসের কোন ব্যক্তির যেন করোনা ভাইরাস না থাকে আর বাসেই উঠবোনা জীবনে তবুও আমাকে রক্ষা করো প্রভু।  কিছুটা পথ যাবার পর বাস থামলো একটে মেয়ে হেল্পারকে অনেক রিকুয়েষ্ট করে বাসে উঠলো যদিও বা বাসের সকলেই চেঁচিয়ে উঠলো সিট নাই মিয়া বসবে কোথায়। কিন্তু মেয়েটার দিকে তাকালে যে কারোই মায়া চলে আসবে অনেক মায়াবী চেহারা আহা আমারও মায়া চলে এসেছে একটু হলে চোখে জল আসতো। হেল্পার মামা অনেক কথা শোনার পরেও উঠায় নিলো আর কথা দিলো এটাই শেষ আর কাউকে উঠাবেনা। মেয়েটা উঠে পড়লো বাসে  মেয়েদের জন্য যে সিট গুলো বরাদ্দ থাকে সেগুলোও একজনেই রাজত্ব করে বসে আছে বসতে দিবেনা কেউ সাফ কথা। মেয়েটা অসহায়ের ন্যায় দাঁড়িয়েই রইল উপরের হাতল টা ধরে। এমনে দিন গুলোতে অনেকেই নিজের সিট ছেড়ে বসতে দিত মা-বোনদের এমনকি আমিও করি। এমন কিছুই ভাবতেছি আবার ভাবতেছি মেয়েটা অনেক সুন্দর। এত সুন্দর মেয়ে একটা একাই দাড়িয়ে আছে বিষয়টা আমার কাছে খুব খারাপ লাগতিছে মায়াও লাগতিছে এমনেই মায়াবী চেহারা আগেই বলছিলাম। হঠাৎ করে একটা হাঁচির শব্দ হলো সবাই চেঁচামেচি শুরু করলো এ মামা বাস থামাও এই মেয়েরা নামায় দাও ওর করোনা আছে। পরিস্থিতি আসতে আসতে জটিল হতে লাগলো বিষয়টা আর স্বাভাবিক থাকছেনা। আমার দেখে মনে হলোনা মেয়েটার সর্দি-কাশির সমস্যা আছে নিতান্তই হাঁচি এসে গেছিলো হটাৎ তাই হাঁচি দিয়েছে। আমি এসব ভাবতেছি মনে মনে এই পাবলিক এর সামনে নায়ক ভাব নিলে সমস্যা আছে যেহেতু করোনা একটি ভয়ের কারন হয়ে দাড়িয়েছে সাড়াবিশ্বে। কিন্তু আমার ত মন মানছেনা লাভ এন্ড ফাস্ট সাইড হয়ে গেলো বুঝি। আমি একটু শান্ত করার চেষ্টা করলাম ভাই দেখেন ওনাকে দেখে মোটেই অসুস্থ মনে হচ্ছে না শুধু শুধু বেলেম দিচ্ছেন কেনো। ( বিঃদ্রঃ আমি নারীবাদী নই কিন্তু নারীকে সম্মান করি) যেই বলা সবাই চেইতা উঠলো আমার দিকে। বাকবিতণ্ডা চললো কিছু সময়।
অতপর আমি তাহাদিগোর কাছে হেরে গেলাম মেয়ে টিকে আর বাসেই রাখলো না নামিয়ে দিলো বাস থামিয়ে।  আমার আর কি আমাকেও নামিয়ে দিয়েছে সাথে। অতপর নতুন বাস এর খোঁজে দুজন দাড়িয়ে রইলাম রাস্তার ধারে।

…. চলবে

লেখক—
মোঃ কামরুজ্জামান,শিক্ষার্থী,সিভিল বিভাগ,ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।

SK Computer, Godagari, Rajshahi. 01721031894

About জনতার কথা ডেস্ক

Check Also

কালোকে কালো সাদাকে সাদা  বলতে হবে, কোন অপশক্তিকে প্রশ্রয় দেওয়া হবে না – খাদ্যমন্ত্রী 

রহমতউল্লাহ নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি : যারা উন্নয়নের সমালোচনা করেন তারা দেশকে অস্থিতিশীল করার কাজে লিপ্ত। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *