Breaking News
Home / অন্যান্য / উন্মুক্ত জনতার কথা / বাঁধ নির্মাণ না হলে ছয়টি গ্রামের হাজার হাজার বিঘা কৃষি জমি,ঘরবাড়িসহ নদীগর্ভে বিলিনি হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা 

বাঁধ নির্মাণ না হলে ছয়টি গ্রামের হাজার হাজার বিঘা কৃষি জমি,ঘরবাড়িসহ নদীগর্ভে বিলিনি হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা 

শাহীন আলম লিটন কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিজড়িত কুঠিবাড়ী রক্ষায় পদ্মা নদীর পারে প্রায় ৪ কিলোমিটার বাঁধ নির্মাণ হলেও এখন পর্যন্ত কুঠিবাড়ী রক্ষায় কোন বাঁধ নির্মাণ হয়নি’ এমনটায় অভিযোগ করেছেন কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার শিলাইদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন খান তারেক।তিনি বলেন,কুঠিবাড়ী রক্ষার নামে বাঁধ নির্মাণ হলেও কুঠিবাড়ী সংলগ্ন নদীর প্রধান দেড় কিলোমিটার কোমরকান্দির অংশে কোনো বাঁধ নির্মাণ না হওয়ায় ভাঙন দেখা দিয়েছে।চলমান ভাঙন কোনভাবে প্রতিরোধ না করা গেলে কুঠিবাড়ী সহ আশেপাশের ছয়টি গ্রামের হাজার হাজার বিঘা কৃষি জমি,ঘরবাড়িসহ সবকিছু নদীগর্ভে বিলিনি হয়ে যাবে।
পদ্মা নদীর ভাঙন রোধে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সংবাদকর্মীদের অনুরোধও জানিয়েছেন তারেক।
জানা যায়,জেলার কুমারখালী উপজেলার শিলাইদহ ইউনিয়নের কোমরকান্দি অংশে পদ্মা নদীর দেড় কিলোমিটার পাড় ভাঙন শুরু হয়েছে।বর্ষায় নদীতে পানি বাড়ার সাথে সাথে এমন ভাঙন শুরু হয়।আরো জানা যায়, কুঠিবাড়ী রক্ষা ও নদী ভাঙন রোধে একটি প্রকল্প ইতিমধ্যে বাস্তবায়ন করা হয়েছে।এতে দুইটি অংশে তিন হাজার ৭২০ মিটার বাঁধ নির্মাণ করা হয়।কিন্তু মাঝে ফাঁকা রেখে দুইপাশে বাঁধ নির্মাণ হওয়ায় এমন আগাম ভাঙন ধরেছে পদ্মায়।
সরেজমিন গেলে কোমরকান্দি আলাল বলেন,সপ্তাহ খানেক হলো নদীতে পানি বাড়ছে।এরমধ্যে দেখা দিয়েছে ভাঙন।এরআগে দুইবার ঘরবাড়ি সরিয়েছি। এবারো সরানোর প্রস্তুতি নিচ্ছি।আমরা গরীব মানুষ।জায়গা জমি নেই।বারবার ঘর-বাড়ি সরানোর টাকা পয়সা কোথায় পাব।নাম প্রকাশ না করা শর্তে একজন গৃহিণী বলেন,ভাঙনের ভয়ে রাতে ঘুম হয়না।মনে হয় কখন যেন নদীতে ভেসে যায়।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান বলেন,এবছর পানি বাড়ার সাথে সাথেই নদীতে ভাঙন দেখা দিয়েছে।আমি পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীকে সাথে নিয়ে ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেছি।তিনি আরো বলেন,খুব অচিরেই ভাঙন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
কুষ্টিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পীযুষ কৃষ্ণ কুন্ডু বলেন,কুঠিবাড়ী রক্ষায় দুইটি স্থানে তিন হাজার ৭২০ মিটার বাঁধ ইতিমধ্যে নির্মাণ করা হয়েছে।সুলতানপুর ও শিলাইদহ অংশে অতীতে বেশি ভাঙন দেখা দেওয়াই ঐ অংশে বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে।তিনি আরো জানান,দুই বাঁধের মাঝে নতুন দেড় কিলোমিটার অংশে ভাঙন শুরু হয়েছে।পরিদর্শন করেছি।উর্ধ্বতন কর্তপক্ষকে জানা হবে।
SK Computer, Godagari, Rajshahi. 01721031894

About জনতার কথা ডেস্ক

Check Also

ফুলবাড়ীতে অর্থের অভাবে বৃদ্ধার লাশ নিলো না পরিরার, দাফন করলো ছাত্রলীগ

মোঃআরিফুল ইসলাম,ফুলবাড়ী(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃকুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলা  স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মৃত্যু হওয়া এক বৃদ্ধার লাশ পরিবার নিতে অস্বীকৃতি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *