Breaking News
Home / অন্যান্য / উন্মুক্ত জনতার কথা / কুষ্টিয়ায় লক্ষ্যমাত্রার অধিক পাটের চাষ

কুষ্টিয়ায় লক্ষ্যমাত্রার অধিক পাটের চাষ

শাহীন আলম লিটন, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : পাটের টাকা পায়টে (শ্রমিক) খায়। পাট চাষ করে যা টাকা আসে তা দিয়ে লেবার খরচই উঠে না চাষীদের। এমন অভিযোগ আর নেই। গত বছর ভালো দাম পাওয়ায় এবার কুষ্টিয়া অঞ্চলে মনের সুখেই পাট চাষ করছে কৃষকরা। বিগত বছর গুলোতে পাট বিক্রি করে লাভ না হলেও গত বছর দাম পেয়ে ভালো লাভ হয়েছে চাষীদের। যে পাট ৬-৭শ টাকা মন হিসাবে বিক্রি করতো চাষীরা সেটা ১৭-১৮শ টাকায় বিক্রি করতে পেরেছে। গত বছর ভালো দাম পাওয়ায় বেশ খুশি তারা। তাই এবছর পাট চাষে বেশ আগ্রহ দেখিয়েছেন কৃষকরা। চলতি মৌসুমে জেলার পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রাও অর্জন হয়েছে। কুষ্টিয়া জেলা পাট অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্য মতে, কুষ্টিয়া জেলার ৬টি উপজেলায় চলতি মৌসুমে মোট পাটের আবাদ হয়েছে প্রায় ৯৬ হাজার ৫শ ১৩ একর জমিতে। এবছর লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৯৪ হাজার ২শ ৩৫ একর জমি।  লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ২ হাজার ২শ ৭৮ একর জমিতে বেশি পাটের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে কুষ্টিয়া সদরে ৬৭৯২ একর, কুমারখালীতে ১২৩২৫ একর, খোকসায় ১০৬২১ একর, মিরপুরে ১৭০৯২ একর, ভেড়ামারায় ৮৭০৬ একর এবং দৌলতপুরে ৪০৯৭৭ একর। ঝুঁর্ণিঝড় আম্ফাণের কারণে যে বৃষ্টিপাত হয় এতে ৯শ ৬শ ৫১ একর জমির পাট ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। গত বছর  জেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিলো ৯০ হাজার ৫শ একর জমি। সে বছর পাটের আবাদ হয়েছিলো ৮৯ হাজার ৫শ ৩৪ একর জমিতে। এছর পাটের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়ে ৪ লক্ষ ২৪ হাজার ৬শ ৫৪ বেল। কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমলা ইউনিয়নের চৌদুয়ার এলাকার চাষী মামুন আলী জানান, “আমি দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে পাট চাষ করি। তবে দিন দিন পাটের দাম ভালো না পাওয়ায় অনেক চাষী পাট চাষ ছেড়েই দিয়েছিলো। গত বছর আমি মাত্র ১ বিঘা জমিতে পাট চাষ করেছিলাম। গতবছর ভালো দাম পেয়েছি। ১৭শ টাকা মন হিসাবে বিক্রি করেছিলাম।” তিনি আরো বলেন, “দাম ভালো পাওয়ার কারণে এবং লাভবান হওয়ায় এবছর আমি তিন বিঘা জমিতে পাট চাষ করেছি। পাটের রোগবলাই তেমন একটা নাই। পাটও বেশ ভালো হয়েছি। দাম ভালো পেলে লাভ হবে ভালোই।” একই এলাকার কৃষক নবীছদ্দিন শেখ জানান, “এক বিঘা জমিতে পাট করতে ৬-৮ হাজার টাকা খরচ হয়ে থাকে। আমি গত বছর তিন বিঘা জমিতে পাট করেছিলাম। বিঘাপ্রতি ১০/১১মন করে ফলন পেয়েছিলাম। দামও ভালো ছিলো। ১৮শ টাকা মন বিক্রি করেছিলাম। তাই এবারো ৩ বিঘা পাটের আবাদ করেছি।” পাট চাষের ক্ষেত্রে পাটের জমির আগাছা দমন, পাট পাতলাকরণের ক্ষেত্রে বেশি শ্রমিকের প্রয়োজন হয়। যেহেতু শ্রমিকের সংকট দেখা দেয় তাই কৃষকরা বিকল্প ভাবে পাটের পরিচর্যা করেও লাভবান হচ্ছেন। মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া এলাকার কৃষক সিরাজ মন্ডল জানান, “বিঘা প্রতি কমপক্ষে ১৫-২০টা লেবার লাগে শুধুমাত্র পাটের আগাছা দমন করতেই। আবার ৪/৫ টা শ্রমিক লাগে পাট পাতলা করতে। জনপ্রতি ৪০০ টাকা থেকে ৪৫০ টাকা দেওয়া লাগে। আবার শ্রমিকও পাওয়া যায় না। তাই বাজার থেকে আগাছা নাশক এনে দিয়েছি। ৮০ টাকায় পাটের জমির ঘাস পুরো পরিষ্কার। এখন শুধু ৪টার লেবার নিয়ে বাছাই দিতে হবে।” তিনি আরো বলেন, “পূর্বের ফসল তামাক ছিলো। তাই জমিতে বেশি সারের প্রয়োজন হয় না। পাট চাষ ইদানিং খুবই লাভজনক হয়েছে। আর পাটের দাম তো বেশ ভালো।” কৃষক মুক্তার হোসেন জানান, “পাট চাষীদের তুলনায় বেশি লাভ করে পাটের ব্যবসায়ীরা। চাষীরা গরিব হওয়ায় পাট উঠলেই বাজারে বিক্রি করে দেয়। তাই তুলনামুলক কম দাম পায় চাষীরা। তবে গত বছর থেকে পাটের দাম ভালোই। এবার পাটও বেশি মাঠে।” এদিকে পাট চাষীদের যে কোন সমস্যায় মাঠে গিয়ে পরামর্শ দিয়ে আসছেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।
মিরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ জানান, “কৃষকরা যে ফসলে লাভ পাওয় সেটা চাষে আগ্রহ দেখায়। পাটের দাম ভালো হওয়ায় তারা পাট চাষ করছেন। পাটের বিভিন্ন রোগ ও পোকা দেখা দিলে আমরা কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে আসছি।” কুষ্টিয়া পাট অধিপ্তরের মুখ্য পাট পরিদর্শক সোহরাব উদ্দিন জানান, “কৃষক পর্যায়ে পাটের দাম বেশ ভালো। গত বছর কৃষকরা ২৪০০ থেকে ২৫০০ টাকা পর্যন্ত মন হিসাবে পাট বিক্রি করেছে। যখন পাট উঠে তখনও ১৭-২২শ টাকার পর্যন্ত দাম পেয়েছে। এছাড়া জেলার প্রায় ১ হাজার ৮শ পাট চাষীদের প্রনোদনা প্রকল্পের মাধ্যমে পাট বীজ, রাসনায়িক সার দেওয়া হয়েছে। মুলত পাটের দাম ভালো হওয়ায় চাষীরা পাট চাষে বেশি আগ্রহী হয়েছে।” তিনি আরো বলেন, “আম্ফান ঝঁড়ের কারণে ক্ষতিগ্রস্থ চাষীদের সঠিক তথ্য উপজেলা কৃষি অফিসের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানোর চেষ্টা চলছে। যাতে পাট চাষীরা ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সেদিকে আমরা লক্ষ্য রাখছি।”
SK Computer, Godagari, Rajshahi. 01721031894

About জনতার কথা ডেস্ক

Check Also

রাজশাহীতে প্রতারক ও মানব পাচারকারী চক্রের ৩ সদস্য আটক

মো.পাভেল ইসলাম নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী নগরীতে প্রতারক ও মানব পাচারকারী চক্রের তিনজন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *