Breaking News
Home / জাতীয় / করোনার থাবায় বন্ধ হলো বাংলার ঐতিহ্যবাহী পহেলা বৈশাখ

করোনার থাবায় বন্ধ হলো বাংলার ঐতিহ্যবাহী পহেলা বৈশাখ

নতুন বছরের উৎসবের সঙ্গে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর কৃষ্টি ও সংস্কৃতির নিবিড় যোগাযোগ। গ্রামে মানুষ ভোরে ঘুম থেকে ওঠে, নতুন জামাকাপড় পরে এবং আত্মীয়স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবের বাড়িতে বেড়াতে যায়। বাড়িঘর পরিষ্কার করা হয় এবং মোটামুটি সুন্দর করে সাজানো হয়। বিশেষ খাবারের ব্যবস্থাও থাকে। কয়েকটি গ্রামের মিলিত এলাকায়, কোন খোলা মাঠে আয়োজন করা হয় বৈশাখী মেলার। মেলাতে থাকে নানা রকম কুটির শিল্পজাত সামগ্রীর বিপণন, থাকে নানারকম পিঠা পুলির আয়োজন। অনেক স্থানে ইলিশ মাছ দিয়ে পান্তা ভাত খাওয়ার ব্যবস্থা থাকে। এই দিনের একটি পুরনো সংস্কৃতি হলো গ্রামীণ ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন। এর মধ্যে নৌকাবাইচ, লাঠি খেলা কিংবা কুস্তি একসময় প্রচলিত ছিল। বাংলাদেশে এরকম কুস্তির সবচেয়ে বড় আসরটি হয় ১২ বৈশাখ, চট্টগ্রামের লালদিঘী ময়দানে, যা জব্বারের বলি খেলা নামে পরিচিত।
সম্রাট আকবার তার দরবারের বিশিষ্ট বিজ্ঞানী ও জ্যোতির্বিদ আমির ফতুল্লাহ শিরাজীকে হিজরী চান্দ্র বর্ষপঞ্জীকে সৌর বর্ষপঞ্জীতে রূপান্তরিত করার দায়িত্ব প্রদান করেন। ৯৯২ হিজরী মোতাবেক ১৫৮৪ খৃস্টাব্দে সম্রাট আকবার এ হিজরী সৌর বর্ষপঞ্জীর প্রচলন করেন। তবে তিনি ঊনত্রিশ বছর পূর্বে তার সিংহাসন আরোহনের বছর থেকে এ পঞ্জিকা প্রচলনের নির্দেশ দেন। এজন্য ৯৬৩ হিজরী সাল থেকে বঙ্গাব্দ গণনা শুরু হয়। ইতোপূর্বে বঙ্গে প্রচলিত শকাব্দ বা শক বর্ষপঞ্চির প্রথম মাস ছিল চৈত্র মাস। কিন্তু ৯৬৩ হিজরী সালের মুহাররাম মাস ছিল বাংলা বৈশাখ মাস, এজন্য বৈশাখ মাসকেই বঙ্গাব্দ বা বাংলা বর্ষপঞ্জির প্রথম মাস এবং ১লা বৈশাখকে নববর্ষ ধরা হয়।
এপ্রিল মাসে আমরা বাংলাদেশীরা একটি উৎসব করে থাকি, তা হলো ১৪ই এপ্রিল। অর্থাৎ পহেলা বৈশাখে বাংলা নববর্ষ পালন করা। আমাদের দেশে প্রচলিত বঙ্গাব্দ বা বাংলা সন মূলত ইসলামী হিজরী সনেরই একটি রূপ।
এই প্রথমবারের মত হচ্ছে না পহেলা বৈশাখ! এতো বছরের ঐতিহ্য।
মরন ঘাতী করোনার কারনে বন্ধ হয়ে গেছে বাংলাদেশের সকল অনুষ্ঠান,আয়োজন।
কিন্তু তারপরেও আমরা সতর্কতা অবলম্বন করি না।
নিজের দেশকে রক্ষা করতে হলে,নিজেকে,নিজের পরিবারকে রক্ষাকারী হতে পারেন আপনি নিজেই। প্রত্যেকেই নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করে সচেতনতা অবলম্বন করার অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।
আতংকিত না হয়ে সচেতন হলেই রক্ষা পাওয়া যাবে মরন ব্যাধি করোনা থেকে।
সবাই নিজ নিজ প্রসাশন এর নির্দেশনা মেনে চলার আহবান জানানো যাচ্ছে।

ভালো থাকুক আমার দেশ
ভালো থাকুক বাংলাদেশ।

মোঃ মাসুদুর রহমান
সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ
ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

SK Computer, Godagari, Rajshahi. 01721031894

About জনতার কথা ডেস্ক

Check Also

রাজশাহীর সিটি হাটে ড্রেনের মধ্যে নারীর লাশ

মোঃ পাভেল ইসলাম রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীতে ড্রেনে একটি ড্রামের মধ্যে অজ্ঞাত এক নারীর লাশ উদ্ধার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *